ঢাকা ইউনিভার্সিটি গ্রাডুয়েট সদস্যদেরকে জানাচ্ছি আমার শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা। আপনারা অনেকে আমার জন্য দোয়া করেছেন। আমি এজন্য আপনাদের কাছে চিরকৃতজ্ঞ। আমি দেখেছি দোয়া খুব শক্তিশালী। আমি বিশ্বাস করি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রাজুয়েট ও কনকর্ডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর শ্রদ্ধেয় ড. নূরুল ইসলাম সাহেব মানুষের দোয়ার ফলে অনেক দিন বেঁচেছিলেন। আমার বয়ষ ৮৫ বছর। আমার চাচা শিল্পী আব্দুল লতিফ সাহেব গেয়েছেন, “আমি বাইতে যে আর পারিনারে আমার ভাঙ্গা তরী; আমার প্রাণে সদাই ডর লাগেরে কখন ডুবে মরি I” আপনাদের দোয়া আমার জীবন-তরীকে ভাসিয়ে রাখবে।
আমাদের কয়েকজন গ্রাজুয়েট ভাইবোনেরা আমাকে আমার পরিবারের কথা জিজ্ঞেস করেছেন। কুমিল্লার মেয়ে বাংলা বিভাগের ছাত্রী আয়শা ও আমি ৬১ বছর আগে ১৯৫৯ সালে একটা ছোট পাখির বাসা বেঁধেছিলাম। ছোট ছোট মুখে বাসাটি ভরে যায়। তাদের জায়গা দেওয়ার জন্য পাখির বাসাটাকে বড়ো করা হয়। এর পর একের পর এক পাখিগুলোর ডানা গজিয়ে তারা ভিনদেশে চলে যায়। আমরা দু’জন বুড়োবুড়ি এখন সেই বাসার এক কোনে পড়ে আছি।
আমাদের ছেলে মাসাল্লাহ দুনিয়ার সেরা কিডনি ডাক্তারদের ভেতর একজন। সে আমেরিকার একটা ইউনিভার্সিটির কিডনি ট্রান্সপ্লান্টের ডিরেক্টর। সে কিডনি রোগের উপর অনেক মূল্যবান আবিষ্কার করেছে। তার ৪০০-র বেশি গবেষণা পাবলিকেশন আছে। সে দুনিয়ার অনেক রাজা মহারাজা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের চিকিৎসক। আমাদের ছেলের ঘরে তিনটা নাতি, আর মেয়ের ঘরে দু টা নাতি ও একটা নাতনি। আমার দু’টো নাতি লেখাপড়া শেষ করে ভালো চাকরি করে; দু’টো নাতি তাদের ভালো চাকরি ছেড়ে দিয়ে ব্যবসা করছে; একটা নাতি মাস্টার্স প্রোগ্রামে ভর্তি হলো; আর একমাত্র নাতনি মেডিক্যাল স্কুলের জন্য তৈরী হওয়ার জন্য কলেজে যাচ্ছে। আমাদের এক চট্টগ্রাম-আমেরিকান নাতবৌ তিনটা মাস্টার্স ডিগ্রি শেষ করে এবার তার পি. এইচ. ডি. ডিগ্রির পড়াশোনা শুরু করছে। আগামী সেপ্টেম্বর মাসে যে তরুণী আমার আর একজন নাতবৌ হবে সে ডক্টর অব ফার্মেসি ডিগ্রি শেষ করে চাকরি করছে। আপনারা আমাদের সবার জন্য দোয়া করবেন।
60th wedding anniversary picture, 2019.
May be an image of 7 people, including Rabiul Islam, people standing and indoor