ড. সৈয়দ মাইনুল আহসান ও তার স্ত্রী বেগম আহসান আমাদের ঘনিষ্ট বন্ধু এবং আমার স্ত্রীর দিক থেকে দূর সম্পর্কের আত্মীয়। ওনরা দুজনই খুব ভালো মানুষ । ড. আহসান একজন নামকরা অর্থনীতিবিদ। তিনি কনকরর্ডিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতির পূর্ণ প্রফেসর ডিসাবে অবসর নিয়ে এখন স্পেইনে একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করবেন।
বেগম আহসানের পরিবারটা অসাধারণ। ওনার নানা সোনারগাঁওয়ের সৈয়দ নুরুল হক ছিলেন জগন্নাথ কলেজের ইংরেজির অধ্যাপক। তার প্রথম জামাই কাজী আনোয়ারুল হক ছিলেন পুরানো দিনের পাকিস্তানের মিনিস্টার । তিনি বাংলাদেশে জিয়াউর রহমান সাহেবের সময়ও একজন মিনিস্টার ছিলেন। দ্বিতীয় জামাই ছিলেন প্রফেসর শামসুল হক সাহেব। তিনি প্রথম ছিলেন ডিপিআই,, তারপর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর। পরিশেষে তিনি হয়েছিলেন পাকিস্তানের শিক্ষামন্ত্রী। তৃতীয় জামাই আল-ইমদাদ খান ছিলেন একজন সুফী মানুষ। তিনি ছিলেন পাবলিক সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান। চতুর্থ ও সবার ছোট জামাই ছিলেন নুরুদ্দিন আহমদ সাহেব। তিনি ছিলেন ঢাকা বিশবিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার। আমি শুনেছি যে তার মতো সৎ অফিসার এখন বিরল। আমি ছিলাম অতি ভাগ্যবান। এই মহান মানুষদের তিন জনের সাথে আমার পরিচয় ছিল। বিশেষ করে আল-ইমদাদ ও নুরুদ্দিন সাহেব আমাকে খুব স্নেহ করতেন। আল্লাহ তাদেরকে বেহেস্ত নসীব করুন।
Dr. and Mrs. Mainul Ahsan/ Kazi Anwarul Haque